Archive for সেপ্টেম্বর 3, 2010

‘৪০ বছরে ৫০টির বেশি হাক্কা (সাঁকো) বানাইছি আমরা আট গেরামের মানুষ। টিয়াখালী খালের দুই পারের ১০-১২ হাজার মানুষ এই হাক্কার ওপর দিয়াই খাল পার হয়। একে তো মাইনষের চাপ, হের ওপর প্রতি বর্ষায় হাক্কা নষ্ট হয়। হেই লাইগ্যা ফি বচ্ছরই নতুন হাক্কা তৈয়ার করন লাগে।’ কথাগুলো বলছিলেন বরগুনার আমতলী উপজেলার উত্তর টিয়াখালী গ্রামের শরীফ উদ্দিন। উপজেলার টিয়াখালী খালের ওপর একটি সেতুর দাবি দীর্ঘ চার দশকের। কিন্তু সেতু না হওয়ায় বছরের পর বছর দক্ষিণ আমতলী, মানিকঝুড়ি, চলাভাঙ্গা,

টিয়াখালী খালের ওপরের এই সাঁকো দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করে তিন শতাধিক খুদে শিক্ষার্থী

উত্তর টিয়াখালী, তারিকাটা, আরপাঙ্গাশিয়া, খুরিয়ার খেয়াঘাট ও টিয়াখালী গ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষের দুর্ভোগের যেন শেষ নেই। স্থানীয় সমাজসেবক মজনু খান জানান, গ্রামের মানুষ প্রতিবছর চাঁদা তুলে সাঁকো নির্মাণ করে খাল পারাপার হচ্ছে। অর্থাভাবে যেনতেনভাবে তৈরি সাঁকোর ওপর দিয়ে প্রতিদিন সহস্রাধিক মানুষ হাটবাজার, স্কুল-কলেজ ও উপজেলা সদরে (বিস্তারিত…)

Advertisements

সাংসদদের আজকাল চলতি মডেলের দামি বিদেশি গাড়ি সম্পর্কেও ওয়াকিবহাল থাকতে হয়। সম্প্রতি সাংসদদের জন্য শুল্কমুক্ত সুবিধায় গাড়ি আমদানির সুযোগ আবার অবারিত করা হয়েছে। তিন কোটি টাকা দামের গাড়ি এখন তাঁরা ৫০ লাখ টাকায়ই কিনতে পারবেন। তাঁদের জন্য ব্যাংকগুলো ঋণ দিচ্ছে, গাড়ি ব্যবসায়ীরা পত্রিকায় গাড়ির বিজ্ঞাপন ছাপছেন আর বিদেশি গাড়ির সচিত্র বিবরণ তাঁদের বাড়িতেও পৌঁছে দিচ্ছেন। নবীন-প্রবীণ নির্বিশেষে সরকারি ও বিরোধী দলের সাংসদেরা একযোগে শুল্কমুক্ত গাড়ি পেতে উদ্গ্রীব হয়ে উঠেছেন। জনগণের করের টাকার প্রতিদানে সরকারি সেবা নিশ্চিত করা এবং জনগণের পক্ষে আইন তৈরি করাই যাঁদের দায়িত্ব, তাঁরা যখন আপন স্বার্থে বিধি প্রণয়নে দ্বিধা করেন না, তখন (বিস্তারিত…)