Archive for the ‘Power Sector’ Category

Decision will be take quick about ‘Primary Energy”

Posted: জানুয়ারি 4, 2009 in Power Sector

প্রাইমারি এনার্জিবিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে হবে: তামিম

 

ঢাকা, ডিসেম্বর ৩১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)– বিদ্যু, জ্বালানি খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত প্রধান উপদেষ্টার বিশেষ সহকারি তামিম বলেছেন, ‘প্রাইমারি এনার্জিবিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে না পারলে বিদ্যু সমস্যার সমাধান হবে না। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, জিডিপির প্রবৃদ্ধি বজায় রাখতে হলে বিদ্যুতের চাহিদা প্রচুর পরিমাণে বেড়ে যাবে। বুধবার সিরাজগঞ্জে দেশের দ্বিতীয় পূর্বপশ্চিম বিদ্যু সঞ্চালন লাইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান উপদেষ্টার সহকারী এসব কথা বলেন। তামিম এসময় গ্যাসের সঙ্কটের কথা উল্লেখ করে কয়লাভিত্তিক বিদ্যু কেন্দ্র স্থাপনের পক্ষে মত দেন। তিনি বলেন, “বড় পুকুরিয়ার কয়লা দিয়ে ৪০০৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যু পাদন সম্ভব। কয়লা খনির পাদন আরও বাড়ানো যাবে।অধ্যাপক তামিম জানান, তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রায় ১০০০ মেগাওয়াট বিদ্যু পাদনের জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এর মধ্যে ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যু পাদন শুরু হয়েছে। জুন মাস নাগাদ অবশিষ্ট ৬০০ মেগাওয়াট পাদন শুরু হবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিদ্যু বিভাগের সচিব . এম ফাওজুল কবির খান বলেন, “পূর্বাঞ্চলে অতিরিক্ত বিদযু থাকলেও আন্তঃসংযোগের অভাবে পশ্চিমাঞ্চলে দিতে পারিনি। পূর্বাঞ্চলে ভোল্টেজ সমস্যা ছিল। নতুন সঞ্চালন লাইনের ফলে সমস্যার সমাধান হবে।তিনি বলেন, আমরা বিদ্যু পাদনে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নতুন সরকারকে স্বল্প মেয়াদী সিদ্ধান্ত নিয়ে ভাবতে হবে না। তার দীর্ঘ মধ্য মেয়াদী সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য সময় পাবে। পূর্বপশ্চিমে বিদ্যু সঞ্চালনের জন্য ১০০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ২৩০ কিলোভোল্টের নতুন লাইন স্থাপন করেছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানী বাংলাদেশ লিমিটেড (পিজিসিবি) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ থেকে দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া পর্যন্ত ৩২০ কিলোমিটার দীর্ঘ সঞ্চালন লাইন স্থাপন করতে ব্যয় হয়েছে ১৫০০ কোটি টাকা। ১৯৮২ সালে দেশে প্রথম পূর্বপশ্চিম আন্তঃসংযোগ সঞ্চালন লাইন স্থাপন করা হয়। এর ক্ষমতা ছিল ৩০০ মেগাওয়াট যা এর মধ্যে কমে গেছে। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পিজিসিবি চেয়ারম্যান খাজা গোলাম আহমেদ, বিদ্যু উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান শওকত আলী, পল্লী বিদ্যুতয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ মজুমদার রমুখ